Machine RPM দিয়ে যেভাবে SMV নির্ণয় করবেন।

 গার্মেন্টস আইটেম বা গার্মেন্টস প্রসেসের SMV নির্ণয়ের অনেক পদ্ধতি রয়েছে। যেমন-

১। টাইম স্টাডি।
২। PMTS (Predetermined Motion and Time Study). এটি জন্য বিভিন্ন এপ্লিকেশন ও সফটওয়্যার ব্যবহার করা হয়।
৩। সিন্থেটিক ডাটা থেকে
৪। মেশিনের RPM এর সাহায্যে।
এই পোস্টে Machine RPM দিয়ে SMV বের কিভাবে করতে হয় সে সম্পর্কে আলোচনা করা হলো।

Machine RPM,SMV,SPI,PMTS

এ পদ্ধতির জন্য নিম্নোক্ত ডাটা প্রয়োজন।

১। Sewing Machine RPM
২। Selected Seam Length in Inche
৩। SPI (Stitch Per Inch)
 

 

এখন নিচের সূত্রের সাহায্যে Cycle Time নির্ণয় করতে হবে।

 

Cycle time = (Seam Length in Inche × SPI)/ Machine RPM

Now we know,

Basic time = Cycle time × Performance rating

Standard Minute Value = (Cycle time × Performance rating + Allowance)

 

Let say

A sewing Machine RMP = 1000

Seam Length = 50 inch

SPI = 12

Performance Rating = 80%

Allowance = 20%

 

So, Cycle time = (Seam Length Inch × SPI) ÷ RPM

= (50× 12) ÷ 1000

= 0.6

 

Now,

Standard Minute Value (SMV) = (Cycle time × Performance rating + Allowance)

= 0.6 × 80% + Allowance

= 0.48 + Allowance

= 0.48 + 0.48 × 20%

= 0.48 + 0.096

= 0.576 Minute

আরো বিস্তারিত জানতে চাইলে ভিডিওটি দেখুনঃ


হিটসেট কি? ইলাস্টিন ফেব্রিক কেন হিটসেট করা হয়? হিটসেট সম্পর্কে কিছু গুরুত্বপূর্ণ তথ্য।

হিটসেট কি?

বিশেষ করে যে নিট কাপড়ে ইলাস্টিন (আমরা লাইক্রা বললে ভালো চিনে থাকি) থাকে তাকে স্টেবল করার জন্য ফেব্রিককে যে থার্মাল প্রসেস করা হয় তাকে হিট সেটিং বলা হয়ে থাকে। 
fabric heatset,what is heatset,lycra fabric heatset
হিটসেট প্রধানত নিচের কাজগুলো করে থাকে।
Stabilize yarn twist
Removing residual shrinkage
Increase wrinkle resistance
Obtain durable pleat

ইলাস্টিন ফেব্রিককে হিটসেট না করলে কাপড় ডাইং এর পর খেপে যায় আর কাপড় এ প্রচুর ক্রিজ পরে যা ফিনিশ করার পর ও ঠিক হয় না।


হিটসেট সম্পর্কে কিছু তথ্যঃ

হিটসেট না করলে ফেব্রিকের ডায়া কমে যাবে তাকে স্টেন্টার এ টেনে ও ঠিক করা যাবে না।

হিট সেট করলে ফেব্রিক গ্রে কালার থেকে হালকা হলুদ রর্ণ ধারন করে এবং ফেব্রিক থেকে বিস্কুট এর মত গন্ধ  বের হয় ।
ফেব্রিকের কালার একটু হলুদ হলেও সমস্যা নাই কারন তাকে ব্লিচ করলে হলদে ভাবটা চলে যাবে।
কাপড় কে হিট সেট করার আগে ডায়া ওপেন করে নিতে হয়। পরে ব্যাক সুইং করে আবার টিউব ডায়া করে নিতে হয়।
হিটসেট করার সময় স্টেন্টার মেশিনে এর তাপমাত্রা রাখবেন ১৯০- ২০০ ডিগ্রি রাখতে হয়।

ভাইভাতে ডাক পেতে, CV ই মেইল করার সময় যে বিষয়গুলো অবশ্যই খেয়াল রাখবেন।

 অনেক সময় সিভি খুব সুন্দর করে লিখলেও, অগুছালোভাবে ইমেইল এর কারে আপনার সিভি খুলেও দেখা হয় না। সিভি মেইল করার সময় কিভাবে মেইল লিখবে তার একটি আলোচনা নিচে করা হলো।

garments viva,viva tips,job viva interview tips,job tips,cv email procedure

১। অবশ্যই মেইলের অর্থপূর্ণ একটি সাবজেক্ট লিখতে হবে। অনেকে সাবজেক্টে লিখে থাকেন- CV, My CV, Job CV, CV for Job অথবা অর্থ নেই এরকম কিছু লিখে থাকে। অনেক Recruiter শুধু মাত্র একটা আনপ্রফেশনাল সাবজেক্টের কারণে সিভি রিজেক্ট করে দেয়।

কিভাবে সাব্জেক্ট লিখবেন তার কিছু নমুনা দেওয়া হলো।

> CV of [Your nane]; যেমনঃ CV of Mohiuddin Ahmed

CV for [Job Post Name]; যেমনঃ CV for the position of Maneger, CV for the position of AGM (অনেক সময় এভাবে লেখার জন্য আবেদন পত্রে নির্দেশনা দেওয়া থাকে)

 


 

২। সুন্দর একটি ইমেইল বডি লেখা। অনেকে সিভি এটাচ করে বডিতে শুধু এরকমভাবে কিছু লিখে। Hi, this is my CV. Plz find it. Or Hi here I have attached my CV or Please find my CV from the attachment.

আসলে একরকম ভাবে কিছু লিখা ঠিক নয়। একটু গুছিয়ে সুন্দরভাবে লিখতে হবে। নিচে কিছু নমুনা দেওয়া হলো।

 

Dear Sir,
In the response of your job application I have attached my CV for the position of [Job Post name] for your kind consideration.

.

.

.

.

.

Regards,

[Your Name]

[Your Current Company name, If have] >>> জব না করে থাকলে, আপনার সর্বশেষ প্রতিষ্ঠানের নাম।

[Your Current Position] >>> জব না করে থাকলে, আপনার মেজর সাব্জেক্ট।

[Your Contact Number]

 

অথবা সুন্দর একটা কভার লেটার লিখতে পারেন। কভার লেটার কিভাবে কিখবেন তা নিয়ে আরকটি পোস্টে বিস্তারিত আলোচনা করবো।

সিভিতে (CV) তে যে ভুলগুলোর জন্য চাকরি হয়না

 চাকরি পাওরার প্রাথমিক ধাপ হচ্ছে নিজের সুন্দর একটি সিভি। একজন সিলেকশনার প্রথমে কাউকে না চিনেই তাকে প্রাথমিক বাছাই করে থাকে একটি সিভির মাধমে। একটি সিভি যত নির্ভুল, গোছানো ও তথ্য-বহুল হবে , সেই সিভিটা শর্ট লিস্টেট হবার সম্ভবনা তত বেশি।

 

আধুনিক যুগে প্রিন্টেট সিভি’র চেয়ে প্রধানত ই-মেলেই সিভি বেশি আদান-প্রধান করা হয়। বর্তমান চাকরীর বাজারে যেকোন চাকরীর বিজ্ঞপ্তিতে প্রচুর আবেদন পড়ে যার ফরমাল মাধ্যম হচ্ছে সিভি। যেহেতু কয়েকটি খালি পোস্টের জন্য প্রচুর আবেদন জমা পড়ে তাই শর্টলিস্টেট করায় সময় ইমেইল বা সিভির ভুলকে খুব প্রাধান্য দেওয়া হয়।

CV,Textile Job CV,Garments Job CV,CV writting

ই-মেইলে সিভি পাঠাতে গেলে ধরণের ভুল হবার সম্ভবনা থাকে-

১। ই-মেইল সংক্রান্ত ভুল।

২। সিভি সংক্রান্ত ভুল।

 

 


ই-মেইল সংক্রান্ত ভুলের নমুনাঃ

ই-মেইল এর সাবজেক্ট না লেখা।

সাবজেক্ট ভুলভাবে লেখা।

সাবজেক্ট এ যে পোস্ট এর জন্য সিভি পাঠানো হচ্ছে তা না লেখা।

ই-মেইল এর বডিতে কিছু না লেখা

বডিতে কিছু লিখলেও কোন সম্বোধন না করা।

নিজের নাম লেখে ই-মেইল এর বডি শেষ করা।

ইমেই এর বডিতে কাভার লেটার না দেওয়া।

ই-মেইল বডিতে ভুল শব্দ বা বাক্য থাকা।

সিভি PDF ফরমেট না দিয়ে Word ফরমেট এ পাঠানো।

সিভি ফাইলটার যথার্থ নাম দেয়না

 


 

সিভি সংক্রান্ত ভুলের নমুনাঃ

সিভিতে শব্দ ও বাক্যগত ভুল থাকা।

সিভিতে অপ্রাসঙ্গিক বিষয়ের প্রাধান্য দেওয়া।

সিভিতে নিজেকে উপস্থাপণ করতে না পারা।

সিভিতে ভুল তথ্য দেওয়া।

সিভিতে লেখা যেকোন বিষয় সম্পর্কে ভাইবাতে বলতে না পারা।

সিভি দেখতে স্মার্ট না হওয়া।

 

 

 

যেহেতু চাকরীর বাজার খুব প্রতিযোগিতাপূর্ণ তাই চাকরিদাতা অনেক প্রার্থীর মধ্য থেকে সবদিক দিয়ে ভাল ব্যক্তিটিকেই সিলেক্ট করবেন। তাই নিজেকে বাচাই পর্বের প্রাথমিক ধাপেই যোগ্য প্রমাণ করতে হবে। আর প্রথম ধাপেই ভুলের কারণে বাদ পরে গেলে ভাইভা দেওয়ার সুযোগটাই আসবে না ফলে চাকরি পাওয়ার সম্ভবনা অনেক কমে যাবে।

গার্মেন্টস তৈরিতে ৪ টি বড় অ-উৎপাদনশীল ব্যবস্থা ও তার প্রতিকার।

গার্মেন্টস তৈরিতে ৪ টি বড় অ-উৎপাদনশীল ব্যবস্থা ও তার প্রতিকার।

বিভিন্ন কারণের প্রোডাকশন ফ্লোরে গার্মেন্টস এ উৎপাদন ব্যহত হয়। সমান সংখ্যক লোকবল দিয়ে যদি অপেক্ষাকৃত কম উৎপাদন হয় তাহলে তাহলে ইফিসিয়েন্সি কমে যায়। উৎপাদন কম হবার বিভিন্ন কারণের মধ্যে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ৪ টি কারণ ও তাদের প্রতিকার নিয়ে আলোচনা করা হলো। গুরুত্বপূর্ণ ৪ টি কারণ হলোঃ

 ১। কাজের জন্য অপেক্ষা করা।

২। কাটিং না থাকা।

৩। Alteration অথবা Repair বেশি হওয়া।

৪। লাইন সেটিং।

 

Garments NPT,NPT of Garmernts,Non Productive Time

 ১। কাজের জন্য অপেক্ষা করা।

মাঝে মাঝে লাইনে বিভিন্ন কারণে অনেক অপারেটর কাজ ছাড়া বসে থাকে। এতে করে প্রচুর কর্মঘন্টা নষ্ট হয়। নিচে কিছু কারণ দেওয়া হলো।

 


 

কারণঃ

কাটিং থেকে ইনপুট না পাওয়া

ট্রিমস-এক্সেসরিস না থাকা।

আগের অপারেটর পরের অপারেটরকে পর্যাপ্ত কাজ না দিতে পারা।

অল্টার বা রি-ওয়ার্ক এর জন্য কাজের জন্য অপেক্ষা করা।

সঠিকভাবে লাইন ব্যালেন্সিং করে না পারা

অপারেটর অনুপস্থিত থাকা

 

প্রতিকারঃ

সুইং লাইন শুরু হবার পূর্বেই সকল ইনুপুট ও ত্রিম-এক্সেসরিস অন্তত ২-৩ দিনের আছে কিনা নিশ্চিত হয়ে নেওয়া।

সঠিকভাবে লাইন ব্যালেন্সিং করা যাতে সকল অপারেটরের ক্যাপাসিটি ভ্যারিয়েশন ১০-১৫% এর বেশি না হয়।

অপারেটরদের প্রয়োজনে ট্রেইনিং এর ব্যবসস্থা করা যাতে অল্টার কম হয়।

অপারেটরদের মোটিভেট ও ইন্সেন্টিভ দিয়ে অনুপস্থিতি কমানো ও মনোবল বাড়াতে হবে।

 

২। কাটিং না থাকা।

All operators may sit idle or few operators at the back of the production line may sit idle for the feeding next cutting.  

যদি কাটিং থেকে ইনপুট না পাওয়া যায় তাহলে পর্যায়ক্রমে একটি লাইনের প্রায় সব অপারেটর কাজহীন হয়ে পরে। নিচে কাটিং না থার কিছু কারণ উল্লেখ করা হলো।

 

 

 

কারণঃ

চাহিদা মত ফেবিক না কাটা।

ফেব্রিক কাটিং এ ভুল করা।

কাটিং কোয়ালিটি ঠিক না থাকা।

 

প্রতিকারঃ

অন্তত ১.৫-২ দিনের ইনপুট WIP হিসেবে থাকা।

ফেব্রিক কাটার সময় মার্কার ও ফেব্রিক রুল ভালভাবে চেক করে নেওয়া যাতে কোনভাবেই ভুল কাটিং না হয়।

কাটিং এর কোয়ালিটি ঠিক রাখা।

 

৩। Alteration অথবা Repair বেশি হওয়া

When required stitch quality is not made for the first time, garment parts need to open and stitch it again. This task is called repair work or alteration.

যদি কোন গার্মেন্ট প্রথবারে সঠিক কোয়ালিটি অর্জনে ব্যর্থ হয় তাহলে কাক্ষিত কোয়ালিটি পেতে এটিকে খুলে আবার কাজ করতে হয়। এই বিষয়টিকে অল্টার বলে। বলা হয়ে থাকে যে এক পিছ অল্টার মানে তিন পিছ গার্মেন্টস বানানোর সময় নষ্ট হয়ে যাওয়া। নিচে অল্টার হওয়ার কিছু কারণ উল্লেখ করা হলো।

 

 

 

কারণঃ

ভুলভাবে সেলাই করলে।

ভুল পার্টস সেলাই করলে।

ভুল ট্রিমস-এক্সেসরিস লাগালে।

অদক্ষ অপারেটর দিয়ে কাজ করালে।

অমনোযোগী ও বেশি প্রোডাকশনের জন্য দ্রুত কাজ করে গেলেও অল্টারের পার্সেন্টেজ বেড়ে যায়।

 

প্রতিকারঃ

লাইন সুপারভাইজা/লাইন-চিফ এর তীক্ষ্ণ দৃষ্টি রাখা যাতে কোনভাবেই কোন অপারেটর ভুল সেলাই না করে।

কোনভাবেই লাইনে একইসাথে বিভিন্ন সাইজের কাট-প্যানেট মিক্স করা যাবে না।

সঠিক সাইজের ট্রিমস-সঠিক সাইজের বডির সাথে লাগাতে হবে।



৪। লাইন সেটিং।

সুইং লাইন যদি সঠিকভাবে সেট না করা যায় তাহলে লাইনের ইফেসিয়েন্সি অনেক কমে যায় এবং লাইনের প্রোডাকশন কমে যায়। নিচে কিছু কারণ উল্লেখ করা হলো।

 

 

 

কারণঃ

সঠিকভাবে লাইন লে-আউট ও লাইন ব্যালেন্সিং না করা।

বারবার লাইনে স্টাইল চেঞ্জ করা

লাইনে স্টাইল অভালেপিং করা।

একই দিনে কোন সেকশন/গ্রুপের সকল লাইন একসাথে সেট না করে গ্যাপ দিয়ে সেট করা।

ব্যাক-টু-ব্যাক লাইন সেটিং না করা।

সুযোগ থাকলেও একই লাইনে ভিন্ন-ভিন্ন স্টাইল ইনপুট দেওয়া।

 

প্রতিকারঃ

সঠিকভাবে লাইন লে-আউট ও লাইন ব্যালেন্সিং না।

যত বেশি সম্ভব একই লাইনে একই ধরণের স্টাইল ইনপুট করা।

হঠাৎ লাইন স্টপ করে আরেক স্টাইল না চালানো।

স্টাইল চেঞ্জের সময় ব্যাক-টু-ব্যাক লাইন সেটিং করা।

একই লাইনে যত সম্ভব একই স্টাইল ইনপুট দেওয়া।